fbpx
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে অপপ্রচার, খালেদা জিয়ার সাবেক পিএসকে আইনি নোটিশ

অনলাইন
  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১১ বার পঠিত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে চরম ঘৃন্য, ঔদ্ধত্যপূর্ণ, অরুচিকর, মিথ্যা ও বানোয়াট কথা ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখার মাধ্যমে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক একান্ত সচিব (পিএস) নিউইয়র্কপ্রবাসী মোহাম্মদ সামছুল আলমকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট শওকত আলী পাটোয়ারী তুহিন বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) তার আইনজীবীর মাধ্যমে নোটিশটি পাঠান।

সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ওমর ফারুক আসিফ স্বাক্ষরিত লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে, আপনি (সামছুল আলম) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে চরম ঘৃণ্য, ঔদ্ধত্যপূর্ণ, অরুচিকর, মিথ্যা ও সম্পূর্ণ বানোয়াট কথা ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন। এর মাধ্যমে আপনি বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করেছেন। এ লেখা গোটা বাংলাদেশের মানুষের প্রতি অবমাননাকর। এ বক্তব্যে বাংলাদের মানুষ আপনার ওপর ক্ষিপ্ত ও বিক্ষুব্ধ। রাষ্ট্রবিরোধী এ ঔদ্ধত্যপূর্ণ স্ট্যাটাস বাংলাদেশের সব মানুষ এবং আওয়ামী লীগের প্রতিটি কর্মীকে আঘাত করেছে।

নোটিশে আরো বলা হয়, আপনার এ বক্তব্য চরম ঘৃণ্য, ঔদ্ধত্যপূর্ণ, অরুচিকর, মিথ্যা ও সম্পূর্ণ বানোয়াট। এ বক্তব্য ফেসবুকে আপলোড করায় আপনি রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক অপরাধ, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০০৮ এর ধারাসমূহের অপরাধ এবং অন্যান্য ফৌজদারি আইনের অপরাধ করেছেন।

এ নোটিশ পাওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আপনি আপনার উল্লেখিত ফেসবুক আইডিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের জনগণের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা না করলে আপনার বিরুদ্ধে ফৌজদারি ও দেওয়ানি অধিক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে এতে উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য, সামসুল আলম  বহু বছর ধরে আমেরিকায় পলাতক আছেন। সেখান থেকেই তিনি, সরকার, রাষ্ট্র, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীসহ বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের নামে মিথ্যা ,বানোয়াট ও গুজব প্রচার করে আসছিলেন। গত ১৭ সেপ্টেম্বর তারিখে প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফর নিয়েও তিনি বানোয়াট ও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করেন। যে কারণে এই লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

সামসুল আলম বিএনপি জোট সরকারের সময়ে খালেদা জিয়ার এপিএস-১ হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে তার বিভিন্ন অপকর্ম ও দুর্নীতি সামনে আসতে থাকে। ফলে তিনি আমেরিকায় পালিয়ে যান। স্ত্রী, সন্তানসহ সামসুল এখন নিউ ইয়র্কে অবস্থান করছেন। তার স্থায়ী ঠিকানা শরিয়তপুর জেলার দাসের জংগল গ্রামে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর...

এনএএন টিভি লাইভ

%d bloggers like this: